জন্মদিনেও শুটিং করবেন তিশা !


ইচ্ছে থাকার পরেও সোমবার ছুটি কাটাতে পারছেন না তিশা। নন্দিত এই অভিনেত্রীর জন্মদিন বলে ইচ্ছে ছিলো নিজের মতো
করে সময়টা কাটাবেন। কিন্তু সবমিলিয়ে একটি ভালো স্ক্রিপ্টের নাটকের সিডিউল দেয়া হয়ে যায় আজকের দিনটিতেই।

তাই জন্মদিনের অধিকাংশ সময় নুসরাত ইমরোজ তিশার কাটবে.কালিয়াকৈর জমিদার বাড়িতে। সেখানে তিনি সাইমুর রহমান
সোহান রচিত ও পরিচালিত ‘ইলিশ কথা’ নাটকের শুটিং করবেন। সহশিল্পী হিসেবে থাকবেন আবুল হায়াত ও ইন্তেখাব দিনার। নাটকে তিশা অভিনয় করবেন ফুলমতি চরিত্রে। তিশার বাবা
এনামুল হক যতোদিন বেঁচেছিলেন ততোদিন পর্যন্ত তিশার জন্মদিন উদযাপিত হতো টানা দু’দিন ধরে। কিন্তু ২০০৩ সালের ৭
সেপ্টেম্বরেরর পর থেকে এভাবে তিশার জন্মদিন আর উদ্যাপিত হয়নি। ২০০৩ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি ছিলো বাবার সঙ্গে তিশার
শেষ জন্মদিন। সেই জন্মদিনে মেয়ের জন্য এনামুল হক একটি ফ্ল্যাট কিনেছিলেন। প্রতিবারই জন্মদিনে তিশাকে তার বাবা বলতেন, আজকের দিনে আজকের পৃথিবীতে তুমি নতুন এক
মানুষ। এইদিনে তোমার যাতে খুশি লাগে তাই করবে। বাবার সেই কথা প্রতি জন্মদিনেই কানে বেজে ওঠে তিশার।

যেহেতু নিজের জন্মদিনের পরের দিনই একুশে ফেব্রুয়ারি, তাই জন্মদিনে সাধারণত কোনো টিভি চ্যানেলের অনুষ্ঠানেও অংশ
নেন না তিশা। নিজের জন্মদিন এবং বর্তমান কাজ প্রসঙ্গে নুসরাত ইমরোজ
তিশা বলেন, আল্লাহর অশেষ মেহেরবাণীতে আমি খুব ভালো একটি পরিবারে জন্মেছি, বেড়ে উঠেছি। আমার পরিবার আমাকে যে শিক্ষা দিয়ে বড় করেছেন, তাতে আমি নিজেকে
সারাজীবন একজন পজিটিভ মানুষ হিসেবেই গড়ে তুলেছি। জন্মদিন এলে স্বাভাবিকভাবেই বাবার কথা বেশি মনে পড়ে।
তবে এটা সত্য যে আজকে আমার যে অবস্থান, তার পেছনে আমার একার কোনো ভূমিকা নেই। আমার মা শাহীন মাহফুজা হক
আমার জন্য অনেক কষ্ট করেছেন। তিনি চাইলেই অনেক বড়
ডাক্তার হতে পারতেন। কিন্তু আমাকে সময় দিতে গিয়ে
আমাকে মানুষ করতে গিয়ে তিনি নিজের পেশাকে বিসর্জন
দিয়েছেন। আমি, আমার মা অনেক কষ্ট করেই আজকের এই অবস্থানে এসেছি। পাশাপাশি আমাকে চারপাশ থেকে অনেকেই সহযোগিতা করেছেন, তাদের কাছে ঋণী আমি।

এদিকে চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে তিশা পরমব্রতের বিপরীতে
তাহের শিপন এবং মুকুল রায় চৌধুরীর নির্দেশনায় ‘হলুদবণি’
চলচ্চিত্রের শুটিং শুরু করবেন কলকাতায়।



EmoticonEmoticon