যে কারণে বিয়ে করেননি করণ জোহর


করণ জোহরের ছবি মানেই প্রেমের ছবি। বেশিরভাগ ছবির কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে ভাঙা প্রেম। যাদের জীবনে প্রেম সম্পূর্ণতা পায়নি। যারা পাগলের মতো ভালোবেসেও মনের মানুষকে জীবনসঙ্গী বা জীবনসঙ্গিনী হিসেবে পাননি। ‘কাল হো না হো’, ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ বা সাম্প্রতিক ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ তাদের ছুঁয়ে যাবেই। করণের প্রেমের ছবির এই বিষণ্ণ দিকটি নিয়ে বহু আলোচনা হয়েছে। তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে চর্চা তো প্রায় দুই দশক ধরে চলছে। অনেক ক্ষেত্রে ট্রলডও হয়েছেন তিনি। 
কিন্তু সত্যিই  কোনও কোনও ছবি দেখলে মনে হয়, প্রেমকে না পাওয়ার যন্ত্রণাটা খুব তীব্রভাবে অনুভব করেছেন তিনি। সম্প্রতি একটি প্যানেল ডিসকাশনে তাকে বলিউড ছবির নাটকীয়তা সম্পর্কে প্রশ্ন করা হয়। তার উত্তর দিতে গিয়ে করণ তার জীবনের সেই অমোঘ সত্যটি জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘অনেকে বলেন হিন্দি ছবি খুব নাটকীয় অথচ এর শিকড়টা কিন্তু বাস্তব জীবনেই রয়েছে। আমার চোখের সামনে আমার প্রেমকে, আমার ভালোবাসার মানুষকে অন্যের সঙ্গে বিয়ে হয়ে যেতে দেখেছি। এমন কিছু যখন জীবনে ঘটে তখন মনে হয় এই কষ্টটা থেকে কোনওদিন মুক্তি পাবে না।’
এতটা কষ্ট পেয়েছিলেন বলেই হয়তো ‘কাভি আলভিদা না কহনা’-র মতো ছবি করেছেন করণ যেখানে চিরাচরিত বলিউড ছক মেনে বিয়ে মানেই হ্যাপিলি এভার আফটার নয়। বরং সত্যিকারের প্রেমের খোঁজে একটা ভুল বিবাহিত সম্পর্ক ভেঙে বেরিয়ে আসার কথা বলা হয়েছে। করণকে যখন জিজ্ঞাসা করা হয় যে প্রেম না ধনসম্পত্তি— কোনটি তার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ তিনি বলেন, ‘সত্যিকারের প্রেম হারিয়ে যায়, কখনও কখনও শরীরের খিদে মনকে আচ্ছন্নও করে, তাই আমি ধনী এবং একা হয়ে বাঁচতে চাই।’ 


EmoticonEmoticon