এফডিসিতে জায়েদ-শাকিব একসাথে

জায়েদ খানের হাত ধরে শিল্পী সমিতির অফিসে শাকিব খান

                                                         ছবি:কালের কণ্ঠ 
জায়েদ খানের হাত ধরে দীর্ঘদীর্ঘদিন পরে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির অফিসে এলেন শাকিব খান। এসময় সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ওমর সানীও উপস্থিত ছিলেন।

বিকেলে মান্না ডিজিটাল কালার ল্যাবের সামনে উত্তম আকাশের 'আমি নেতা হবো' ছবির শুটিং চলছিল। এসময় স্পটে হাজির হন জায়েদ খান।
জায়েদ খান শাকিব খানকে তার প্রিয় সমিতির কক্ষে আসার জন্য আহবান জানালে শাকিব না করেন নি। হাসিমুখে ওমর সানীকে নিয়ে শিল্পী সমিতির কার্যালয়ের দিকে রওনা হন।  
শাকিব খান সমিতির কক্ষে এসে বসেন। জায়েদ খান শাকব খানককে চানাচুর ও বিস্কুট দিয়ে আপ্যায়ন করেন।  
এসময় জায়েদ খান বলেন, 'আজ আমার সত্যিই অনেক আনন্দ লাগছে আমি শাকিব ভাইকে তার নিজের অফিসে নিয়ে আসতে পেরেছি। মনে হচ্ছে আমাদের এই শিল্পী সমিতির কার্যালয় পূর্ণতা পেলো। '
শাকিব বলেন, হ্যাঁ এটা তো আমারই অফিস।
ভালো লাগছে এসে, অনেক কিছু পরিবর্তন হয়েছে। কিন্তু মনে হচ্ছে এইতো সেদিনও এই চেয়ারে এসে বসেছি।  
শাকিব আরো বলেন, 'চলচ্চিত্রের উন্নয়নের বিষয়ে বলেন, সবার আগে আমাদের ব্যক্তিদ্বন্দ্ব ভুলতে হবে। চলচ্চিত্রের উন্নয়নে এটাই সবচেয়ে বড় অন্তরায়। আমি রংবাজ ছবিতে সব টেকনিশিয়ান এফডিসি থেকে নিয়েছি। কলকাতার সাথে ছবিতে যাদেরই ভিসা আছে তাদেরকে কলকাতায় পাঠিয়েছি বলেছি কাজ করো। ' 
শাকিব খান ও ওমর সানী প্রায় ৪০ মিনিট শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে অবস্থান করেন। এরপর জায়েদের হাত ধরেই শিল্পী সমিতির কার্যালয় থেকে 'আমি নেতা হবো'র মেকআপ রুমে যান।  
উল্লেখ্য, দুই দুইবার চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন শাকিব খান। সর্বশেষ নির্বাচনে তিনি অংশ নেননি। কিন্তু ওমর সানী প্যানেলকে সমর্থন করেন। নির্বাচনের দিন শাকিব খান মধ্যরাতে নির্বাচন কেন্দ্রে উপস্থিত হলে 'গোলযোগ' শুরু হয়।  
পরে নির্বাচিত প্যানেলের সাথে শাকিবের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসে।


EmoticonEmoticon