বইমেলায় ড. মাহফুজুর রহমানের বই

একাধারে শিল্পোদ্যক্তা, সিনেমা প্রযোজক, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, গীতিকার এবং সবশেষ সঙ্গীতশিল্পী। এতদিন এসব পরিচয়ে পরিচিত হতেন ড. মাহফুজুর রহমান।  তবে এবার তিনি লেখকের খাতায় নাম লেখালেন। তার লেখা প্রথম উপন্যাস ‘স্মৃতির আল্পনা আঁকি’র মোড়ক উন্মোচন করা হল । 
 
মঙ্গলবার রাজধানীল এফডিসির আট নম্বর ফ্লোরে আয়োজিত প্রকাশনা উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। প্রকাশনা উৎসবে বিশেষ অতিথি ও আলোচক হিসেবে বক্তৃতা করেন ইতিহাসবিদ, রাজনীতিক বিশ্লেষক প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন এবং রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. বিশ্বজিৎ ঘোষ। সমন্বয় করেন এটিএন বাংলার কর্মকর্তা তাশিক আহমেদ। উপস্থাপনা করেন হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ ও হৃদি। 
 
উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত মেগা সিরিয়াল ‘স্মৃতির আল্পনা আঁকি’র প্রিমিয়ার শো অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন রাজনীতিক রাশেক রহমান, সঙ্গীতশিল্পী শুভ্রদেব, লেখক-সাংবাদিক মাহমুদ হাফিজ, উপস্থাপক আনজাম মাসুদ, অভিনেতা রহমত আলী, বাবুল আহমেদ প্রমুখ।
 
বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করে তিনি বলেন, মাহফুজুর রহমান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে নানা ক্ষেত্রে সাফল্যের স্বাক্ষর রেখে চলেছেন। লেখক হিসেবেও তিনি সফল হবেন বলে মনে করি।
 
‘স্মৃতির আল্পনা আঁকি’র উপর আলোচনা করতে গিয়ে প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন বলেন, মানুষ জীবনে প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে দু’টি ভাবনার দিকে তাড়িত হয়। একটি বিত্ত-বৈভবের তাড়না, আরেকটি চিত্ত বা শিল্প ও সৃজনগত তাড়না। ড. মাহফুজ দু’টিরই ভারসাম্য ঘটিয়ে জীবনকে বৈচিত্র্যময় করে তুলেছেন। তার উপন্যাসটির শিল্পসফলতা সাহিত্যবোদ্ধারা বিচার করবেন। 
 
ড. বিশ্বজিৎ ঘোষ বলেন, এটি একটি ভিন্নধর্মী উপন্যাস। প্রেমের এক অপূর্বপাঠ পাঠক এ থেকে পাবেন।
 
ঔপন্যাসিক ড. মাহফুজুর রহমান বলেন, উপন্যাস হিসেবে হয়তো আমার প্রথম প্রকাশনা, কিন্তু লেখালেখি জগতে আমি নতুন নই। এর আগে চলচ্চিত্রের কাহিনী লিখে লিখেছি, ঘরজামাই নামে একটা মেগাসিরিয়াল লিখেছি। ছোটবেলায় পাঠ্য বইয়ের বদলে বিমল মিত্র, নীহাররঞ্জন গুপ্তসহ বহু কালজয়ী লেখকের বই পড়ে নিজেকে সমৃদ্ধ করেছি। আমার আজকের যে জ্ঞান তা পাঠ্যবইয়ের বাইরে গল্প উপন্যাস থেকে পাওয়া ভবিষ্যতে এই উপন্যাসের আরও কয়েকটি খণ্ড হবে এবং তার উপর ভিত্তি করে মেগা সিরিয়াল নির্মিত হবে বলেও জানান তিনি।


EmoticonEmoticon