a তারকানিউজ.কম

কিংবদন্তি ব্যান্ড সংগীত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু আর নেই

বাংলাদেশের কিংবদন্তি ব্যান্ড সংগীত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬০ বছর। আজ সকালে নিজ বাসায় তাঁকে অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে স্কয়ার হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

বাংলাদেশের ব্যান্ড সঙ্গীত জগতে গিটার ও গানের ক্ষেত্রে অসামান্য অবদান রেখেছেন আইয়ুব বাচ্চু। গানের পাশাপাশি গিটারেও ভক্তদের মাত করেছেন তিনি।

আইয়ুব বাচ্চুর গাওয়া ‘কষ্ট পেতে ভালোবাসি,’ ‘সেই তুমি কেন অচেনা হলে’, ‘একদিন ঘুম ভাঙ্গা শহরে’, ‘মেয়ে ও মেয়ে’, ‘কবিতা সুখ ওড়াও’, ‘এক আকাশ তারা’ গানগুলো ঘুরেছে মানুষের মুখে মুখে।

১৯৭৮ সালে সঙ্গীতজীবন শুরু করেন আইয়ুব বাচ্চু। আইয়ুব বাচ্চু একাধারে গায়ক, লিড গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার, প্লেব্যাক শিল্পী ও সঙ্গীত পরিচালক ছিলেন।

সোলসের হয়ে ব্যান্ড সঙ্গীতে পা রাখার পর ১৯৯০ সালে নিজের ব্যান্ড দল প্রতিষ্ঠা করেন আইয়ুব বাচ্চু। ব্যান্ডের নাম রাখেন ‘লিটল রিভার ব্যান্ড’। পরবর্তীতে এর নাম বদলে রাখা হয় ‘লাভ রান্‌স ব্লাইন্ড’।

ওই বছরই এলআরবি ডাবল অ্যালবাম দিয়ে তাদের যাত্রা শুরু করে। ১৯৯৫ সালে বাচ্চু তার তৃতীয় একক অ্যালবাম ‘কষ্ট’ বের করেন। বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা একক অ্যালবামগুলোর মধ্যে একটি এটি।

 

এসকে সমীরের সুর ও সংগীতে গাইলেন বাবু

https://www.daily-bangladesh.com/english/assets/news_photos/2018January/SM/-180205105637.

সম্প্রতি নতুন একটি গানে কন্ঠ দিয়েছেন ছোট পর্দা ও বড় পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু। গায়ক হিসেবে তার জনপ্রিয়তাও কম নয়।  তারই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি নতুন একটি গানে কন্ঠ দিয়েছেন ফজলুর রহমান বাবু। 'খোঁপা ক'রে চুল বেঁধো না" শিরোনামে এই গানটির  লিখেছেন ইন্দুবালাখ্যাত সুরকার প্লাবন কোরেশী এবং সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন এসকে সমীর। 

 

লায়নিক মাল্টিমিডিয়ার ইউটিউব চ্যানেলে  গানটির লিরিক্যাল ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে। খুব শিগগিরই গানটি মিউজিক ভিডিও রিলিজ হবে বলে জানা গেছে।  

উল্লেখ্যঃ নাট্যদল ‘আরণ্যক’-এ অভিনয়ের শুরু থেকেই গান গাইতেন। তবে গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘মনপুরা’ চলচ্চিত্রে গান গাওয়ার পর গায়ক হিসেবে বাবুর পরিচিতি ব্যাপকভাবে বেড়ে যায়। স্টেজ শোতেও তার ডাক আসতে থেকে দেশ-বিদেশ থেকে। ‘মনপুরা’ সিনেমার ‘নিথুয়া পাথারে’ গানটি গেয়ে পুরো দেশ কাঁপিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। বাবুর গাওয়া আরেকটি জনপ্রিয় গান ‘ইন্দুবালা’। 


                

 

‘ঘুম নেই দুটি চোখে’ দিয়ে ফিরছেন মনির খান




জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী মনির খানের   ভক্তদের জন্য সুখবর হলো, আবারও ফিরছেন দশ গানের পূর্ণাঙ্গ এ্যালবাম নিয়ে। এমনটাই জানালেন মনির খান। তিনি রোববার রাতে জানান, তার নতুন এই এলবামের নাম ‘ঘুম নেই দুটি চোখে’।লিটন শেখের গীতি কবিতায় গানগুলোর সংগীতায়োজন করেছেন কলকাতার বিনোদ রয়। নতুন গানের পাশাপাশি মনির খান দিলেন এক চমক। ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো গানের সুর করেছেন তিনি। ‘ঘুম নেই দুটি চোখে’ অ্যালবামের দশটি গানেই সুর দিয়েছেন তিনি।
 
মনির খান বলেন, ‘সাহস করে সুর দেয়ার কাজটা করে ফেললাম। এটা আমার জন্য নতুন একটি অভিজ্ঞতা। আশা করছি আমার শ্রোতা-ভক্তরা হতাশ হবেন না।’

তিনি আরও বলেন, ‘অনেকদিন ধরেই এ্যালবাম প্রকাশের পরিকল্পনা করছি। অবশেষে সবকিছু গুছিয়ে আনতে পেরেছি। খুব দ্রুতই এ্যালবামটি প্রকাশ পাবে এমকেমিউজইকের ব্যানারে। এখন তো ভিডিও গানের ট্রেন্ড। তাই অডিও’র পাশাপাশি ভিডিওতেও দেখা যাবে গানগুলো। নিজের গায়কীর স্বকীয়তা বজায় রেখে সময়টাকে ধরতে চেয়েছি গানে গানে।’


চলচ্চিত্রের গানেও মনির খান রেখেছেন সাফল্যের পদচারণা। অসংখ্য জনপ্রিয় গান তিনি উপহার দিয়েছেন প্লেব্যাক গায়ক হিসেবে। ‘প্রেমের তাজমহল’ ছবিতে শিরোনাম গানে কণ্ঠ দিয়ে জয় করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।
এক সাথে শাকিব খান ও 'মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ' ঐশী

এক সাথে শাকিব খান ও 'মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ' ঐশী

http://www.kalerkantho.com/assets/news_images/2018/10/14/165050Untitled-2_copy.jpg 

ঢালিউডের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক শাকিব খান ও  ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশীকে দেখা গেল একই সাথে। আর এর সাথে সাথেই প্রশ্ন উঠেছে তাহলে কি শাকিবের বিপরীতে চলচ্চিত্রে অভিষিক্ত হতে যাচ্ছেন ঐশী? বিষয়টি নিয়ে জলঘোলা হওয়ার আগেই জানা গেল নেপথ্য ঘটনা। 

সম্প্রতি চট্টগ্রামে উপমহাদেশের অভিজাত ফ্যাশন হাউজ প্রেমস কালেকশনসের একটি শাখার উদ্বোধনে হয়। নার এই প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরুর প্রাক্কালে শাকিব ও ঐশীকে অতিথি করে আনা হয়। এসময় প্রেম কালেকশনের কর্ণধার প্রেম চোপড়াসহ অনবেকেই উপস্থিত ছিলেন।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটিতে আয়োজিত গ্র্যান্ড ফিনালেতে দেশসেরার মুকুট মাথায় ওঠে ঐশীর। আগামী ৭ ডিসেম্বর চীনে বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নেবেন তিনি। 

এদিকে শাকিব খান বর্তমানে বেশ কয়েকটি চলুচ্চিত্রের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। সম্প্রতি শাহীন সুমনের 'একটু প্রেম দরকার' চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে দেখা যায় ঢাকাই চলচ্চিত্রের এই অভিনেতাকে। 

কণ্ঠশিল্পী হিসেবে হাজির মোশাররফ করিম ও জুঁই

কণ্ঠশিল্পী হিসেবে হাজির মোশাররফ করিম ও জুঁই

https://s3-ap-southeast-1.amazonaws.com/images.jagonews24/media/imgAll/2018September/mossarof-karim-20181013170450.jpg 

মোশাররফ করিমকে অনেকবারই গান গাইতে দেখা গেছে নাটকে। ‘কেরাম’ নাটকে, ‘দারুচিনি দ্বীপ’ সিনেমাসহ অনেক নাটকেই খালি গলায় গান গেয়েছেন তিনি। এবার আর খালি গলায় নয়, আনুষ্ঠানিক ভাবেই কণ্ঠশিল্পী হিসেবে হাজির হবেন তিনি। সম্প্রতি একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন মোশারফ করিম। রওনক হাসান পরিচালিত প্রথম ধারাবাহিক ‘বিবাহ হবে’ নাটকের শীর্ষ সংগীতে কণ্ঠ দিয়েছেন তিনি।

অভিনেতা ও অভিনেত্রী পরিচয়ে দর্শকের সামনে এসেছেন মোশাররফ করিম-জুঁই। এবার নতুন পরিচয়ে হাজির হচ্ছেন তারা। তাদের পাওয়া যাবে কণ্ঠশিল্পী হিসেবে। এই গানটিতে তার সঙ্গে সহশিল্পী হিসেবে আরও আছেন তার স্ত্রী অভিনেত্রী রোবেনা রেজা জুঁই ও অভিনেতা আহসান হাবীব নাসিম।

টম ক্রিয়েশনস প্রযোজিত এই ধারাবাহিকের জন্য গানটি লিখেছেন রওনক হাসান ও নাওমি কামরুন বিধু। সুর-সংগীত করেছেন আহম্মেদ হুমায়ূন। গানটির রেকর্ডিং হয়েছে মগবাজারের একটি স্টুডিওতে। রওনক হাসানের রচনা ও পরিচালনায় ‘বিবাহ হবে’ নাটকটির শুটিং শুরু হয় ১৮ সেপ্টেম্বর। টানা ১১দিন শুটিং শেষে এখন চলছে সম্পাদনার কাজ।

নির্মাতা বললেন, ‘টানা ১১ দিন প্রথম অংশের শুটিং শেষে সম্পাদনার পাশাপাশি এর শীর্ষ সংগীতের কাজটিও শেষ করলাম। গানটি দারুণ হয়েছে। আমি মুগ্ধ। গানটির সঙ্গে জড়িত সবার প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। সব ঠিক থাকলে শিগগিরই নাটকটি প্রচার হবে বাংলাভিশনে।’

‘বিবাহ হবে’ ধারাবাহিকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন মোশাররফ করিম, অপর্ণা ঘোষ, বড়দা মিঠু, আহসান হাবিব নাসিম, রোবেনা রেজা জুঁই, মনিরা মিঠু, জয়রাজ, ইন্তেখাব দিনার, নমিরা, তারিক স্বপন, নাদিয়া, সুজাত শিমুলসহ অনেকে।


“মেঘের ডানায় “ ইমরান ও কলকাতার নায়িকা দর্শনা

ইমরান, বাংলাদেশের সংগীতে জনপ্রিয় নাম। কন্ঠ, সুর আর সংগীতের যাদুতে জয় করে নিয়েছেন কোটি ভক্তের হৃদয়। এবার তার নতুন গানের ভিডিওতে যুক্ত হয়েছেন কলাকাতার নায়িকা দর্শনা। গানের শিরোনাম ‘মেঘের ডানায়’।

ভারতীয় মডেল-অভিনেত্রী দর্শনা বনিক। ছোট পর্দার মাধ্যমে অভিনয়ে নাম লেখান দর্শনা। এরইমধ্যে টলিউড সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রেও অভিষেক ঘটেছে তার। শুধু তাই নয় কমলেশ্বর, সৃজিত, অঞ্জন দত্তের মতো প্রথম সারির পরিচালকের সিনেমায় অভিনয় করে নিজের অভিনয় দক্ষতার প্রমাণ দিয়েছেন এই অভিনেত্রী। শুধু অভিনয়ই নয় রূপের জাদুতেও মুগ্ধ করেছেন দর্শকদের তিনি। 

‘মেঘের ডানায়’ গানটির কথা লিখেছেন এবং সুর করেছেন সৈয়দ নাফিস। আর সংগীতায়োজনে আছেন এলএমজি বিটস (সৈয়দ নাফিজ, শুভ্র রাহা)। গানটিতে ইমরানের সাথে কন্ঠ দিয়েছেন মধুবন্তী বাগচী।

https://s3-ap-southeast-1.amazonaws.com/images.jagonews24/media/imgAll/2018September/imran-20181011120952.jpg

 ভারতের জনপ্রিয় ভিডিও নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টিভিওয়ালা মিডিয়ার ব্যানারে গানটির ভিডিও পরিচালনায় ছিলেন সুশাভান দাস। পুরো গানের দৃশ্যধারণ হয়েছে কলকাতার বিভিন্ন লোকেশনে।

গানটি প্রসঙ্গে ইমরান বলেন, ‘প্রেমের চিরচেনা, তবে সবসময় সতেজ অনুভূতির ছোঁয়া পাবেন শ্রোতা এবং দর্শক এই গানে। দর্শনা আমার পছন্দের একজন অভিনেত্রী। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের কোনো গানে মডেল হলেন তিনি। আশা করছি গানটির ভিডিওটি ভালো লাগবে সবার।’

আসছে ১৮ অক্টোবর ধ্রুব মিউজিক স্টেশনের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ পাবে ‘মেঘের ডানায়’ গানটি। পাশাপাশি গানটি শুনতে পাওয়া যাবে ডিএমএস ওয়েবসাইট, জিপি মিউজিক এবং বাংলালিংক ভাইবে।

 

অলটাইমের আয়োজনে নিরব-আঁচল

অলটাইমের আয়োজনে নিরব-আঁচল

https://s3-ap-southeast-1.amazonaws.com/images.jagonews24/media/imgAll/2018September/aa-20181010230433.jpg

 দেশের শীর্ষ স্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের খুচরা বিক্রেতাদের দুই দিনব্যাপী ব্যবসায়ী সম্মেলন টাঙ্গাইল ও কুষ্টিয়ায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রাণের বেকারি পণ্য অলটাইমের পক্ষ থেকে গতকাল সন্ধ্যায় টাঙ্গাইলের শিল্পকলা একাডেমিতে ‘বিক্রেতা বন্ধু সম্মেলন’ অনুষ্ঠিত হয়। এতে ৬০০ জন বিক্রেতার মধ্যে একটি র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয় এবং এর মধ্যে বিজয়ী ১৫ জনকে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

পুরস্কার প্রদান করেন ঢাকাই ছবির চিত্রনায়ক নিরব ও চিত্রনায়িকা আঁচল। এছাড়াও এই আয়োজনে তাদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন অলটাইমের হেড অব মার্কেটিং মনিরুল ইসলাম।

সম্মেলন শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়। সেখানে নিরব ও আঁচল পারফর্ম করেন এবং পুরো অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন তাসনুভা এলভিন।

গতকালের এ আয়োজন শেষে আজ সকালে কুষ্টিয়ায় অংশ নেন তারা। কুষ্টিয়ার পৌর কমিউনিটি সেন্টারে আজ সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয় ‘বিক্রেতা বন্ধু সম্মেলন’। এখানেও ৬০০ জনের মধ্যে ১৫ জনকে র‌্যাফেল ড্রয়ের মাধ্যমে পুরস্কার প্রদান করা হয় এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এখানেও পারফর্ম করেন নিরব ও আঁচল।

মনিরুল ইসলাম বলেন, প্রাণ অলটাইমের পক্ষ থেকে টাঙ্গাইল ও কুষ্টিয়ায় খুচরা বিক্রেতা বন্ধু সম্মেলনে করেছি। এখানকার বিক্রেতাদের সঙ্গে পণ্য নিয়ে আলোচনা করেছি। এছাড়াও ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার প্রদান।

নিরব বলেন, ‘প্রাণ অলটাইমের এ আয়োজন থেকে ভিন্নরকম অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি। বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিয়েছি। সবচেয়ে মজার বিষয় হলো টাঙ্গাইল, কুষ্টিয়া ঘুরে ঘুরে দেখেছি। ভীষণ এনজয় করছি।’

এদিকে, গেল দুই সপ্তাহ আগে দুবাই থেকে ট্রাভেল শো করে দেশে ফেরেন নিরব। এর আগেও কানাডায় ট্রাভেল শোয়ে অংশ নিয়েছিলেন গেম রিটার্নস খ্যাত এ চিত্রনায়ক।

একমঞ্চে পর্দা কাঁপানো চার সুপারষ্টার

একমঞ্চে পর্দা কাঁপানো চার সুপারষ্টার

                               http://www.kalerkantho.com/assets/news_images/2018/10/09/135327333.jpg

শাকিব খান। বর্তমান সময়ের সবচেয়ে আলোচিত তারকা। রিয়াজ রোমান্টিক তারকা, ফেরদৌস ও ওমর সানী যাদের কথা ভিন্নভাবে বলার কিছু নেই। এই চারজনকে একসঙ্গে দেখা গেল প্রথমবারের মতো। তারা প্রত্যকেই নিজ সময়ের শীর্ষ জনপ্রিয় নায়ক।

গতকাল সোমবার বাংলাদেশের প্রথম চেইন সিনেপ্লেক্স স্টার সিনেপ্লেক্সের ১৪ তম বর্ষপূর্তি ছিল। এ উপলক্ষে সিনেপ্লেক্সে প্রদর্শিত ১০ টি বাংলা চলচ্চিত্রকে সেরার সম্মাননা দেয়া হয়।

এই অনুষ্ঠানেই হাজির হয়েছিলেন তারা। শাকিব, রিয়াজ, ফেরদৌস ও ওমর সানী একই মঞ্চে দাঁড়িয়ে নিজেদের বক্তব্য পৃথকভাবে প্রদান করেন।

এর আগে চারজনকে পেয়ে তাদের একমঞ্চে ডেকে নেন উপস্থাপক ও অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম জয়। তার আমন্ত্রণে একে একে মঞ্চে যান বাংলা সিনেমার চার নায়ক। আরেফিন শুভ উপস্থিত থাকলেও পরবর্তীতে তিনি  অনুষ্ঠান স্থলে থেকে চলে যান।  অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন চিত্রনায়িকা পপি, জয়া আহসান, নাবিলাসহ অনেকেই।

এবার গানে ফিরলেন ঈশিতা

এবার গানে ফিরলেন ঈশিতা

https://www.poriborton.com/upload/March%2018/01/ishita.jpg

ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী রুমানা রশিদ ঈশিতা। অভিনেত্রীর বাইরেও তিনি একজন নির্মাতা এবং শিল্পী। নব্বই দশক থেকে অভিনয় করে আসছেন তিনি। অভিনয়ের ব্যস্ততার মধ্যেও নিয়মিত গানের চর্চা করেন।

তবে মাঝে অনেকটা সময় সবকিছু থেকেই দূরে সরে ছিলেন তিনি। সেই নিরবতা ভেঙ্গে গেল কোরবানি ঈদে ফিরেছেন অভিনয়ে। এবার ফিরলেন গানেও।

২০১৩ সালে সর্বশেষ মাছরাঙা টেলিভিশনের জন্য একটি গান করেছিলেন তিনি। প্রায় ৫ বছর পর ঈশিতা প্রকাশ করতে যাচ্ছেন তার নতুন গান। এ গানের শিরোনাম ‘তোমার জানালায়’। সোহেল আরমানের কথায় গানটির সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন ইবরার টিপু। সম্প্রতি রাজধানী ঢাকার আশেপাশে গানটির ভিডিও দৃশ্যায়ন করা হয়েছে। ভিডিও নির্মাণ করেছেন রেদওয়ান রনি। গানের ভিডিওতে মডেল হয়েছেন ঈশিতা নিজেই।

আগামী ১১ অক্টোবর চ্যানেল আইয়ের ইউটিউব চ্যানেলে গানটি প্রকাশ করা হবে।

দীর্ঘদিন পর নতুন গান প্রকাশ প্রসঙ্গে ঈশিতা জাগো নিউজকে বলেন, ‘সর্বশেষ পাঁচ বছর আগে গান করেছিলাম। তখন এখনকার মত করে মিউজিক ভিডিও নির্মাণের কনসেপ্ট আসেনি। মাঝে গান নিয়ে বিরতি ছিলো। এরমধ্যে গানের চর্চাটা ঠিকই ছিলো। সেই জন্যই ভাবলাম আবার নতুন গান করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘গানের কথানুযায়ী গল্পের উপর ভিত্তি করে এর ভিডিও নির্মিত হয়েছে। গান ও ভিডিওর গল্পের প্রতিটি ধাপে যত্নের ছোঁয়া আছে। আমাদের জীবনের খুব সাধারণ একটি গল্প দেখা যাবে এ ভিডিওতে। আশা করছি সবার পছন্দ হবে।’

বর্তমান ব্যস্ততা ও অভিনয়ে নিয়মিত হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি আসলে অভিনয়ে নিয়মিত নই। আর ওভাবে নিয়মিত হতেও চাই না। ভালো মানের গল্পে কিছু কাজ করবো। তবে সেটা বছরে ২ কিংবা ৩ এর বেশি হবে না।’

সম্প্রতি আসিফ ইকবাল এবং সোহেল আরমানের কথায় অদিতের সঙ্গে আরও দুটি গানের কাজ শেষ করেছেন ঈশিতা। চলতি বছরের শেষের দিকে আরও একটি গান প্রকাশ করবেন বলে জানালেন এই অভিনেত্রী।

এনটিভির অনুষ্ঠানে অতিথি এ.আর আরিক

এনটিভিতে  সরাসরি সম্প্রচারিত শিক্ষামূলক কুইজ অনুষ্ঠান ‘জানার আছে বলার আছে’। প্রতি পর্বে একজন অতিথি আলোচনায় অংশ নেন। এবারের  অনুষ্ঠানে অতিথি  হিসেবে  থাকছেন তরুণ কন্ঠশিল্পী এ.আর আরিক ।

যিনি "মন   ময়না" গান দিয়ে বেশ পরিচিতি লাভ করেন । অনুষ্ঠানে তিনি তার ব্যক্তি জীবনের কথা ও কিছু গান পরিবেশন করবেন

সোনিয়া রিফাতের উপস্থাপনায়   অনুষ্ঠানটি  আগামীকাল (সোমবার) বিকেল ৪টা ১০ মিনিটে  এনটিভিতে সরাসরি  সম্প্রচারিত হবে , অনুষ্ঠানে দর্শকরা  ফোনকলে যোগ দিতে পারবে ।

অস্ট্রেলিয়া মাতাবেন আগুন ও ন্যানসি

অস্ট্রেলিয়া মাতাবেন আগুন ও ন্যানসি

http://dainikamadershomoy.com/assets/news_photos/2018/10/07/image-160722-1538902741.jpg 

জনপ্রিয় দুই শিল্পী আগুন ও ন্যানসি। দুই প্রজন্মের দুই তারকা। একসঙ্গে খুব বেশি গান করা হয়নি তাদের। বছর আটেক আগে ‘লাভ ডে’ নামের একটি ছবিতে একসঙ্গে কণ্ঠ দিয়েছিলেন ‘আমি কে’ শিরোনামের একটি গানে।

মুক্তি পায়নি সেই ছবিটি। আগুনের সুর সংগীতে সেই গানটিও আনুষ্ঠানিকভাবে আর প্রকাশ পায়নি। এরপর আর তাদের একসঙ্গে পাওয়া কোনো গানে।

তবে এবার দুই তারকা একইমঞ্চে গান করতে চলেছেন। চলতি অক্টোবরের মাঝামাঝিতে অস্ট্রেলিয়া যাচ্ছেন আগুন ও ন্যানসি। সেখানে তিনটি শোতে অংশগ্রহণ করবেন এই দুই তারকা। গাইবেন নিজেদের জনপ্রিয় গানগুলো। বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন ন্যানসি।

এনটিভির আয়োজনে ‘বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যালে’ নামের একটি অনুষ্ঠানে গাইবেন তারা। এছাড়া অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাঙালিদের আয়োজনে দুটি অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করবেন আগুন ও ন্যানসি।

ন্যানসি বলেন, ‘আগামী ২৩ তারিখে আমরা যাব। সিডনি, ক্যানভেরা ও গোলকোস্টে তিনটি শো করবো। আমি এর আগে ২০০৯ সালে অস্ট্রেলিয়ায় শো করেছি। এবার দ্বিতীয়বারের মতো যাচ্ছি। ওই সময় আমি একা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছিলাম। এবার আগুন ভাই যাচ্ছেন। আশা করি অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাঙালিদের সঙ্গে গানে গানে ভালো সময় কাটবে।’

নগর বাউলের জন্মদিন আজ

https://i.ytimg.com/vi/FFtizPVKHy0/maxresdefault.jpg 

জনপ্রিয় ব্যান্ডতারকা ও ব্যান্ডদল নগর বাউলের অন্যতম সদস্য মাহফুজ আনাম। এই নামে তাকে খুব একটা কেউ চেনেন না। যখনই বলা হবে ‘গুরু জেমস’র আজ জন্মদিন তখনই শুভেচ্ছার বৃষ্টি নেমে যাবে ভালোবাসায়। ভক্ত ও অনুরাগীরা জেমসকে গুরু বলে ডাকতেই বেশি তৃপ্তি পান।

ঠিক তাই, উপমহাদেশের অন্যতম সেরা রকস্টার জেমসের আজ জন্মদিন। জাগো নিউজ পরিবারের পক্ষ থেকে রইল তার প্রতি শুভেচ্ছা ও জীবনের নতুন বছরে অভিনন্দন।

এবারে ৫৩ বছরে পা দিলেন এই লিজেন্ড। ১৯৬৪ সালের এই দিনে নওগাঁয় জন্মগ্রহণ করেন জেমস। তার বেড়ে ওঠা চট্টগ্রামে।

জেমসের বাবা ছিলেন একজন সরকারি কর্মচারি, যিনি পরবর্তীতে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরিবারের অমতেই সংগীত চর্চা শুরু করেন জেমস। বাবার সঙ্গে গান নিয়ে অভিমান করে বাড়ি ছেড়ে চলে আসেন। সংগীতের নেশায় ঘর ছেড়ে পালিয়ে যান। চট্টগ্রামের আজিজ বোর্ডিং নামক একটি বোর্ডিং-এ তিনি থাকতে শুরু করেন। সেখানে থেকেই তার সংগীতের ক্যারিয়ার শুরু হয়।

১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠা করেন ‘ফিলিংস’ নামক একটি ব্যান্ড। জেমস নিজেই ব্যান্ডের প্রধান গিটারিস্ট ও ভোকালিস্ট ছিলেন। ১৯৮৭ সালে তার প্রথম অ্যালবাম ‘ষ্টেশন রোড’ প্রকাশ পায়। যদিও অ্যালবামটি সে সময়ের শ্রোতাদের গান শোনার রুচির সাথে একটু ভিন্ন মেজাজের হওয়ায় জনপ্রিয়তা পায়নি। পরে ১৯৮৮ সালে ‘অনন্যা’ নামের অ্যালবাম রিলিজ করে সুপার হিট হয়ে যান জেমস।

এরপর ১৯৯০ সালে ‘জেল থেকে বলছি’, ১৯৯৬ ‘নগর বাউল’, ১৯৯৮ সালে ‘লেইস ফিতা লেইস’, ১৯৯৯ সালে ‘কালেকশন অফ ফিলিংস’ অ্যালবাম গুলো ফিলিংস ব্যান্ড থেকে বের হয়।

এছাড়াও জেমসের অন্যান্য অ্যালবামগুলো হল নগর বাউল থেকে ‘দুষ্টু ছেলের দল’, ‘বিজলি’। একক অ্যালবাম ‘অনন্যা’, ‘পালাবি কোথায়’, ‘দুঃখিনী দুঃখ করোনা’, ‘ঠিক আছে বন্ধু’, ‘আমি তোমাদেরই লোক’, ‘জনতা এক্সপ্রেস’, ‘তুফান’, ‘কাল যমুনা’ ।

এরপর তিনি চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করেও সফল হয়েছেন। তার বেশ কিছু গান চলচ্চিত্রে সুপারহিট হয়ে আছে। ‘দেশা দ্য লিডার’ ছবির জন্য গান করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি।

জেমসের জনপ্রিয়তা শুধু দেশে নয়, আর্ন্তজাতিক পরিমণ্ডলেও ব্যাপক জনপ্রিয় নগরবাউল ব্যান্ডের এই তারকা। পাশের দেশ কলকাতাতেও একটি প্রজন্ম অনুসরণ করেছে তার গান।

বাংলা গানের পাশাপাশি হিন্দি গানে কণ্ঠ দিয়েও জয় করেছেন লক্ষ ভক্ত শ্রোতার হৃদয়। পাশাপাশি বলিউডের ছবিতে গান গেয়েও পেয়েছেন তুমুল জনপ্রিয়তা।

বর্তমানে নিরবে নিভৃতেই কাটে তার দিন। নিজের মতো করে থাকেন, গান করেন। নিজেকে তৈরি করেন দেশ-বিদেশে স্টেজ শোগুলোর জন্য।